দশদিক মহাদেশ

হোম শিক্ষাক্যারিয়ার ভিত্তিক জীবন গঠনে অবদান রাখছে লাইটহাউস ক্যারিয়ার কলেজ

ক্যারিয়ার ভিত্তিক জীবন গঠনে অবদান রাখছে লাইটহাউস ক্যারিয়ার কলেজ

দশদিক প্রতিবেদক: শিক্ষার্থীদের ক্যারিয়ার ভিত্তিক জীবন গঠনের লক্ষ্যকে সামনে রেখে রাজধানীর অভিজাত এলাকা উত্তরায় ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় লাইটহাউস ক্যারিয়ার কলেজ। সময়ের ব্যবধানে লাইটহাউস ক্যারিয়ার কলেজটি আজ সকলের কাছে একটি স্বনামধন্য, গৌরবমন্ডিত এবং সুপ্রতিষ্ঠিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। কলেজটি এক মনোরম পরিবেশে অবস্তিত। প্রতিষ্ঠার পর থেকে কলেজটি শিক্ষার প্রকৃত অর্থ বজায় রাখার ক্ষেত্রে সদা সচেষ্ট। শিক্ষাক্ষেত্রে গুণগত মান রক্ষা করে সম্ভাবনা সৃষ্টির মাধ্যমে অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের আকাঙ্খার বাস্তব প্রতিফলন ঘটাতে চেষ্টা করছে লাইটহাউস ক্যারিয়ার কলেজ।
কলেজটি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড এর নিয়ম কানুন অনুসরণ করার মাধ্যমে মেধা ও দক্ষতার সমন্বয়ে তাদের কাঙ্খিত গন্তব্যের দিকে পৌঁছাতে চেষ্টা করছে। প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলী দ্বারা পাঠদান ও শিক্ষানুরাগী উপদেষ্টামন্ডলী দ্বারা পরিচালিত। একাডেমিক ক্যালেন্ডার ও লেসনপ্ল্যান অনুযায়ী মনোরম পরিবেশে উন্নত পাঠদানের ব্যবস্থা। মেধাবী ও গরিব ছাত্র/ছত্রীদের ফুল ফ্রি, হাফ ফ্রি এবং বৃত্তির বিশেষ ব্যবস্থা। সমৃদ্ধ সাইন্সল্যাব, কম্পিউটার ল্যাব ও সুসজ্জিত লাইব্রেরী। সুনিয়ন্ত্রিত শৃঙ্খলা, ধর্মীয় অনুশাসন ও কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা।
লাইটহাউস ক্যারিয়ার কলেজ এর চেয়ারম্যান এ কে এম মোস্তফা কামাল বলেন, “গতানুগতিক শিক্ষা একজন শিক্ষার্থীকে সুনাগরিক হিসাবে গড়ে তুলতে পারে না। একজন শিক্ষার্থীর মানবিক গুণাবলী ও নৈতিকতা বিকাশের জন্য পাঠ্যপুস্তক নির্ভর লেখাপড়ার পাশাপাশি প্রয়োজন নিজেকে মানসম্মত শিক্ষা ও শৃঙ্খলার মাধ্যমে শ্রেষ্ঠত্বের আসনে অধিষ্ঠিত করা। লাইটহাউস ক্যারিয়ার কলেজ ক্রমাগত উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে বদ্ধ পরিকর। তাই এই বিদ্যাপীঠটি একজন শিক্ষার্থীকে অধ্যয়নের মাধ্যমে ভাল ফলাফলের পাশাপাশি নীতি ও আদর্শের পথে চলতে উৎসাহ প্রদান করে।”
কলেজের নির্বাহী পরিচালক রফিকুল ইসলাম সবুজ বলেন, “লাইটহাউস ক্যারিয়ার কলেজ সুপরিকল্পিত শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে শিক্ষার মান উন্নয়ন ও শিক্ষার্থীদের সোনালী সোপানের আলোকিত পথে অগ্রসর করার ক্ষেত্রে অঙ্গীকারাবদ্ধ। শিক্ষা জাতিকে মুক্তি দেয়। আর নিরক্ষরতা মানুষকে শৃংখলিত করে রাখে। নিরক্ষর মানুষ কোন অবদান রাখতে পারে না।”
অধ্যক্ষ ড. শাহীনা বেগম জানান, “জন্মের পর থেকেই মানুষ কোন না কোন প্রতিভার অধিকারী হয়। কিন্তু সে প্রতিভা সুপ্ত অবস্থায় থাকে। উপযুক্ত শিক্ষার মাধ্যমেই মানুষের নিজ নিজ প্রতিভা বিকশিত হয়। বর্তমান বিশ্বে উন্নত দেশ গুলোতে জনসংখ্যাকে মানব সম্পদে পরিণত করার জন্য বাস্তবমুখী শিক্ষা ব্যবস্থাকে সর্বস্তরে চালু করেছে। মানসম্মত আধুনিক ও যুগোপযোগী শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে আমাদের নতুন প্রজন্ম নিজেদেরকে দক্ষ মানব সম্পদে পরিণত করে নিরক্ষরতা, দুর্নীতি ও সাম্প্রদায়িকতার অবসান ঘটিয়ে উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে সেই লক্ষ্যেই আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা চালু করতে হবে। মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করা বর্তমান সময়ের একটি বড় চ্যালেঞ্জ। জনসংখ্যাকে জনসম্পদে পরিণত করার প্রধান কারিগর হচ্ছে নিবেদিত প্রাণ শিক্ষক। কম্পিউটার ও তথ্য প্রযুক্তি আধুনিক যুগের সবচেয়ে গুরূত্বপূর্ণ বিষয় যা সারা বিশ্বে সর্বোচ্চ স্থান দখল করে আছে। আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায়, তা অগ্রাধিকার হিসেবে বিবেচনা করতে হবে।”
“আধুনিক শিক্ষা, প্রযুক্তিতে দক্ষ, সে সাথে নৈতিক মূল্যবোধ, জনগনের প্রতি শ্রদ্বাবান, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ নতুন প্রজন্ম গড়ে তোলাই হবে আমাদের শিক্ষার মূল লক্ষ্য। এক দিকে যেমন সার্বজনীন শিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে, অন্যদিকে তেমনি আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাকে তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর বিশ্বমানে উন্নীত করতে হবে। আমাদের দেশে বর্তমানে যে সব সমস্যা রয়েছে তার মূলে রয়েছে শিক্ষাহীনতা। শিক্ষা উন্নত জাতির পূর্বশর্ত। শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে মানুষ নিত্য নতুন উদ্ভাবনে মত্ত। তাই বর্তমানে আধুনিক বিশ্বের সাথে প্রতিযোগিতায় টিকতে হলে আমাদের দেশের প্রতিটি মানুষকে যথাযথ শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। আর এ লক্ষ্যেকে সামনে রেখে সকল কার্যক্রম পরিচালনা করছে লাইটহাউস ক্যারিয়ার কলেজ।”
ভর্তি সহ যে কোন তথ্যের জন্য যোগাযোগ: বাড়ি ৯, রোড ২৬, সেক্টর ৭ উত্তরা, ঢাকা। মোবাইল: ০১৯৭৭৪৪৬৬২৬।


পাতাটি ৩৯৫১ বার প্রদর্শিত হয়েছে।