দশদিক মাসিক

হোম জাপান কমিউনিটিমুন্সীগঞ্জ বিক্রমপুর সোসাইটি জাপান আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী ২০১৫

মুন্সীগঞ্জ বিক্রমপুর সোসাইটি জাপান আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী ২০১৫


রাহমান মনি:
ত্যাগের মাধ্যমে আনন্দ সবার মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার অন্যতম বিধান ঈদুল আজাহা ইসলামে সুনিদিষ্ট ভাবে উল্লেখিত।তা সত্বেও প্রবাসের ব্যস্ততম দিনে এবং ভিন্ন পরিবেশে ধর্মীয় আয়োজন, আচার পালন ইচ্ছা ও সামর্থ থাকার পরও অনেক সময় হয়ে ওঠেনা।আর দিনটি যদি হয় কর্ম দিবস তা হলে তো আর কথাই থাকে না।ইসলামী দেশগুলোতে প্রবাসীরা কিছুটা সুবিধা ভোগ করতে পারলেও জাপানের মত দেশে যেখানে ধমীয় আচার পালনের জন্য, এমনকি মে দিবসেও কোন সরকারী ছুটি থাকেনা, সেখানে ঈদের ছুটি আশা করা বিলাসিতা ছাড়া আর কিছুই নয়। অনেকেই হয়তো পূর্র্ ছুটি নিয়ে কিংবা অর্ধ বেলা ছুটি ভোগ করে ঈদের নামাজটা আদায় করে থাকেন। কিন্তু ভিন্ন পরিবেশ হলেও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও সংস্কৃতি প্রিয় এবং ধম ভীরু বাঙ্গালী যে বসে থাকার নয় তা আরেকবা্র প্রমাণ করল জাপান প্রবাসী বাংলাদেশী কমিউনিটি। ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রতি বছরের মত এবারও মুন্সীগঞ্জ বিক্রমপুর সোসাইটি জাপান ঈদ উত্তর এক ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে আয়োজন করে।গত ৪ অক্টোবর রোববার টোকিওর অইয়ামা বুনকা কাইকান এ আয়োজিত ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রায় অধ সহস্রাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি এবং স্থানীয় জাপানিজ সুহৃদরা সতস্তফুর্ত অংশগ্রহন করেন।খোদ রাজধানীতে এবারের আয়োজন হওয়ায় ধর্ম বর্ণ নির্বি শেষে সকলের উৎসব মুখর অংশগ্রহনে আয়োজন স্থলটি হয়ে ওঠে এক চিলতে বাংলাদেশ।
ঈদ পুনর্মিলনী-২০১৫আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসাবে সস্ত্রীক উপস্থিথ ছিলেন জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন। পুরো অনুষ্ঠানকে 3টি পর্বে ভাগ করা হয়। পরিচালনায় ছিলেন নাজমুল হাসান রতন এবং জুয়েল আহসান। প্রথম পর্বে সংগঠনের সভাপতি বাদল চাকলাদারের সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য পর্বে উপবিষ্ট ছিলেন রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন,এশিয়ান পিপলস ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কাৎসুও ইয়োশিনারি, সংগঠনের সাধারণ সমাম্পাদক এমডি এস ইসলাম নান্নু, বর্তমানে জাপান প্রবাসী জাপান সফররত বৃটেন প্রবাসী খুররম আহমেদ, রাষ্ট্রদূত পত্নি ফাহমিদা জাবিস সোমা। শুভেচ্ছা বক্তব্যের শুরুতেই অতি সম্প্রতি পবিত্র হজ পালনকালে মিনাতে বহু প্রাণহানী, 28 সেপ্টেম্বর ঢাকাতে ইতালিয়ান নাগরিক এবং 3 অক্টোবররংপুরে নিহত জাপানী নাগরিক হোশি কোনিওর স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। জাপানপ্রবাসী সকল রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠনসমূহের প্রায় সবাই, সকল মিডিয়া কর্মীসহ বিপুল সংখ্যক প্রবাসী এই হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানান।। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে সকলকে ঈদরে আয়োজনে আপ্যায়ন করা হয়। শেষ পর্বে প্রবাসীদের প্রিয় সাংস্কৃতিক দল স্বরলিপি এবং উত্তরন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মনো মুগ্ধ সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা উপহার দেন। ছবি: রাহমান মনি।


পাতাটি ২৩৩৭ বার প্রদর্শিত হয়েছে।