• শিরোনাম

    ইওয়াতে প্রদেশের ১৯ টি শহর হতে যাচ্ছে টোকিও অলিম্পিক ২০২০ এর আতিথ্য শহর

    | ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৬:২৬ পূর্বাহ্ণ | পড়া হয়েছে 334 বার

    ইওয়াতে প্রদেশের ১৯ টি শহর হতে যাচ্ছে  টোকিও অলিম্পিক ২০২০ এর আতিথ্য শহর

    রাহমান মনি: ২০১১ সালের ১১ মার্চ জাপানে স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে বিধ্বস্ত (প্রলয়ঙ্করী ভুমিকম্প এবং এর ফলে সৃষ্ট সুনামির আঘাতে বহু হতাহত, নিখোঁজ এবং পারমাণবিক চুল্লি ক্ষতিগ্রস্ত হয়) কাটিয়ে ওঠা নবজাগরিত ইওয়াতে প্রদেশ ( প্রিফেকচার ) এর ১৯টি শহর  হতে যাচ্ছে আসন্ন গ্রীষ্মকালীন টোকিও অলিম্পিক ও প্যারা অলিম্পিকের মতো বড় আসরে অংশ গ্রহনকারী ১৮টি দেশের ক্রীড়াবিদদের আতিথ্য শহর বা ‘হোস্ট টাউন’। এর মধ্যে আবার ৮টি থাকবে সরাসরি হোস্ট টাউন এবং ১১টি ধন্যবাদ হোস্ট টাউন।

    বিপর্যয়ের মাত্র ৮ বছর ১১ মাসের মাথায় এমনটি ঘোষণা দিয়েছেন জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তোশিমিতসু মোতেগি এবং ইওয়াতে  প্রদেশের গভর্নর তাকুইয়া মাসসো ।  গভর্নর তাকুইয়া মাসসো আরো বলেন , জাপানের দ্বিতীয় বৃহত্তম প্রদেশ ইওয়াতে প্রিফেকচার যার আয়তন ১৫,২৭৫ বর্গ কিলোমিটার এবং লোকসংখ্যা ১২,২৯,৪৩২ জন । ২০১১ সালের ১১ মার্চ জাপানে স্মরণকালের সবচেয়ে ভয়াবহ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে ইওয়াতে প্রদেশের বিস্তীর্ণ এলাকার অবকাঠামো প্রায় অচল হয়ে পড়ে। সেই ভঙ্গুর অবকাঠামো ইওয়াতের জনগন নিরলস প্রচেষ্টায় একটি আধুনিক এবং বসতবান্ধব এলাকা হিসেবে গড়ে তুলতে সক্ষম হয়।



    ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ শুক্রবার জাপান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে ২০২০ সালে টোকিওতে অনুষ্ঠিতব্য গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক এবং প্যারা অলিম্পিক আসরকে সামনে রেখে স্থানীয় সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় জাপানে বহির্বিশ্বের পর্যটকদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য বিভিন্ন প্রিফেকচার (প্রশাসনিক কাজের সুবিধার্থে জাপানি প্রদেশ বা স্বনির্ভর সরকার)-এর পরিচিতি ক্যাম্পেইন এর অংশ হিসেবে এক অভ্যর্থনা আয়োজনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী তোশিমিতসু মোতেগি এবং গভর্নর তাকুইয়া মাসসো ।

    সেমিনার শেষে অভ্যর্থনা সভায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী কোনো তারো জাপানে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত, কূটনীতিকবৃন্দ, বিশ্ব মিডিয়ার জাপান প্রতিনিধিগণ,সংশ্লিষ্ট এলাকার জনপ্রতিনিধিগণ, জাপান মিডিয়া এবং সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে স্বাগতিক ও শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।শুভেচ্ছা বক্তব্যে তিনি ফুকুশিমা পুনর্গঠনের প্রশংসা করে বলেন, ২০১১ সালে বিপর্যস্ত ফুকুশিমা এখন অলিম্পিকের খেলা আয়োজনের যখন প্রস্তুত, এই জন্য আমাদের বিদেশি বন্ধুদের অবদানও কম নয়।

    এছাড়াও জাপান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ২০২০ সালে অনুষ্ঠিতব্য টোকিও অলিম্পিক এবং প্যারা অলিম্পিক পূর্ব জাপানকে পরিচিতি করানোর উদ্দেশ্যে গ্রহণ করা এক কর্মসূচির অধীনে জাপানের বিভিন্ন অঞ্চল, সেখানকার জীবনযাত্রা, বিভিন্ন সংস্কৃতি, দর্শনীয় স্থান, শিল্প, সাহিত্য, ঐতিহ্য ও কৃষ্টির সঙ্গে পরিচিত করে পর্যটক বাড়ানোই কর্মসূচির অংশ হিসেবে দি সেকেন্ড রিজিওনাল প্রমোশন সেমিনার ইন ফিসক্যাল ২০১৮ এর আওতায় “ভিজিট ইওয়াতে”  নামে অভিহিত ধারাবাহিক সেমিনারে এবার ইওয়াতে প্রিফেকচার কে পরিচিত করানো হয় । সব শেষে ইওয়াতেতে উৎপাদিত ফলজ , জলজ এবং কৃষিজাত পণ্যে  এবং পানীয়তে আপ্যায়ন করা হয়। একই সাথে স্থানীয় সংস্কৃতি তুলে ধরা হয়।

    সৌজন্যে: সাপ্তাহিক । 

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

    ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

    ১২ অক্টোবর ২০২০

    ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

    ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

    ০৪ অক্টোবর ২০২০

    ০১ অক্টোবর ২০২০

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দশদিক