• শিরোনাম

    জাপানের গুনমা প্রদেশে ঈদ আনন্দ ২০১৯ ও মিনা বাজার অনুষ্ঠিত

    রাহমান মনি | ২৬ আগস্ট ২০১৯ | ১:১৮ অপরাহ্ণ | পড়া হয়েছে 116 বার

    জাপানের গুনমা প্রদেশে ঈদ আনন্দ ২০১৯ ও মিনা বাজার অনুষ্ঠিত

    জাপানের গুনমা, তোচিগি ও সাইতামা প্রিফেকচার-এ বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীদের আয়োজনে গুনমা প্রিফেকচারের অইজুমি বুনকামুরা হলে প্রথমবারের মতো আয়োজন করা হয়েছিল ঈদ আনন্দ ২০১৯ ও মিনা বাজার এর।
    সম্পূর্ণ দেশীয় আমেজে রাজধানীর বাহিরে এবং আয়োজনে গুনমা, তোচিগি ও সাইতামা প্রিফেকচার হলেও দিন ব্যাপী এ আয়োজনে আনন্দে অংশ নিতে ছুটে গিয়েছিলেন টোকিও , ইবারাকি , চিবা , শিজুওকা , কানাগাওয়া , নাগানো ও আশ-পাশের প্রিফেকচার গুলিতে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীরা।

    বৈরী আবহাওয়া , শুক্রবার এবং অনেকের-ই কর্ম দিবস হওয়া সত্বেও আয়োজকদের আন্তরিকতা এবং প্রবাসীদের উৎসাহ ও উপস্থিতির কোন কমতি ছিল না । সকলে দিনভর আনন্দে মেতে উঠে।

    ছোট বন্ধু নাফি’র পবিত্র কোরআন তেলোয়াত এর পর বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনার মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা হয় । এরপর-ই হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী , জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নির্মম হত্যাকান্ডের শিকার সকলের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা ও রুহের মাগফেরাত কামনা করে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

    বিশিষ্টজনদের শুভেচ্ছা বক্তব্য , ছোটদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান , গুণীজন সংবর্ধনা , স্থানীয় শিল্পীদের সঙ্গীতানুষ্ঠান , প্রশ্নোত্তর পর্ব এবং সব শেষে ব্যান্ড এর গান দিয়ে অনুষ্ঠান সাজানো হয় । অনুষ্ঠান সাজানোতে ছিল না কোন উগ্রতা বা অপসংস্কৃতির বালাই ।

    শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, মাসুদ আখতার, ফারহানা আফরোজ, ফাতেমা লুৎফর, খন্দকার আসলাম হিরা, শাহীন চৌধুরী, মোঃ গিয়াস উদ্দিন, রাহমান মনি, শাহ হোসেন, মোঃ জসীম উদ্দিন প্রমুখ।
    প্রথমবারের মতো গুনীজন সংবর্ধনায় শিল্প ও সংস্কৃতিতে শাম্মী আক্তার বাবলী এবং সাহিত্য ও সাংবাদিকতায় প্রবীর বিকাশ সরকারকে সন্মানিত করা হয়।
    উল্লেখ্য রবীন্দ্র ভারতী বিশ্ব বিদ্যালয় থেকে রবীন্দ্র সংগীতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী ধারী শাম্মী আক্তার বাবলী’র সিডি এ্যালবাম ‘নীরব আশা’সম্প্রতি প্রকাশ পায়।

    ব্যান্ড শো তে জাপান প্রবাসী বাংলাদেশীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে জাপানে একমাত্র বাংলাদেশী ব্যান্ড দল‘ঝি ঝি পোকা’ ব্যান্ড গ্রুপ । ঝি ঝি পোকার’ নিজস্ব শিল্পী ছাড়াও অতিথি শিল্পীরা ঝি ঝি পোকার’র যন্ত্রে সংগীত পরিবেশন করেন।

    মিনা বাজারে মোট ১৭টি স্টল ছিল। স্টল গুলোতে বাংলাদেশী আমেজ বিরাজমান ছিল।
    ‘মানুষ মানুষের জন্য’ স্লোগানটি বুকে ধারণ করে মীনাবাজারের মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করা হয় । । চ্যারিটি অনুদানের আয়কৃত অর্থ বাংলাদেশে কল্যাণ মূলক কাজে ব্যয় করা হবে বলে উদ্যোক্তা সুত্রে জানা যায় ।
    অনেকদিন পর প্রবাসীরা প্রকৃত অর্থেই বাংলাদেশী সংস্কৃতিতে একটি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করতে পেরে আনন্দে উদ্বেলিত হতে হয়েছে ।

    মহতী এই আয়োজনের সার্বিক দায়িত্ব ও নেপথ্যের কারিগর ছিলেন হাফিজ কবির খান নাঈম এবং জয়ী দম্পতি । অনুষ্ঠান পরিচালনাও করেন এই দম্পতি ।

    rahmanmoni@gmail.com

    মন্তব্য করুন

    মন্তব্য

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ০২ এপ্রিল ২০১৯

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দশদিক