• শিরোনাম

    জাপানে ছোট এবং মাঝারি আকৃতির বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের জন্য উত্তরাধিকারী সন্ধান

    | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ১০:৩১ অপরাহ্ণ | পড়া হয়েছে 1032 বার

    জাপানের প্রায় ৯৯ শতাংশ বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানই ছোট কিংবা মাঝারি আকৃতির। এ ধরণের অনেক প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপকরা ক্রমশ বৃদ্ধ হয়ে পড়ছেন এবং তাদের স্থানে অন্য কাউকে নিয়োগ দিতে না পারায়, কর্তৃপক্ষ এই প্রতিষ্ঠানগুলোকে বন্ধ করে দিতে বাধ্য হচ্ছে। পূর্বে মালিকের সন্তান বা আত্মীয়রা ব্যবসার হাল ধরলেও শিশু-জন্ম হারের সাম্প্রতিক নিম্নমুখী প্রবণতা এবং সন্তানদের নিজের কাজ নিজেই বেছে নেয়ার সুযোগের প্রচলন ব্যবসায়িক উত্তরাধিকার খুঁজে পাওয়ার ক্ষেত্রে মারাত্মক সংকটের সৃষ্টি করেছে।

    এ ধরণের কিছু ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের হাতে রয়েছে দুর্দান্ত প্রযুক্তি। এদিকে, এ ধরণের প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা হ্রাস পেলে সেটি জাপানের অর্থনীতির জন্য একটি বড় আঘাত হিসেবে দেখা দিতে পারে এমন আশংকায় এই খাতে ক্রমশ সংকট বৃদ্ধির উৎকণ্ঠা সরকারের মধ্যে কাজ করছে।



    একজন ব্যবসায়িক উত্তরাধিকার গড়ে তুলতে অনেক সময় লেগে যায়। আর অনেক মালিকই ইতিমধ্যেই অবসরের বয়সের দোরগোড়ায় এসে দাঁড়িয়েছেন। সরকার কর মওকুফ’সহ ব্যবসার মালিক এবং সম্ভাব্য উত্তরাধিকারীদের সহায়তার জন্য একটি বিশেষ পরিষেবা প্রদান করছে।

    এসব প্রচেষ্টার কারণে রক্তের সম্পর্কের বাইরের কারো কাছে মালিকদের ব্যবসা হস্তান্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। ছোট এবং মাঝারি আকৃতির প্রতিষ্ঠানের মালিকদের প্রায় এক-তৃতীয়াংশই আত্মীয়ের বাইরের লোকজনের কাছে ব্যবসা হস্তান্তর করছেন। টোকিও চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালিত সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় দেখা গেছে ৩০ বা ৪০ এর কোঠায় যে সব তরুণরা ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব নিয়েছেন, নতুন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার মধ্য দিয়ে ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ড বা দক্ষতা বৃদ্ধির প্রবণতা তাদের মাঝে দেখা যায়। এই গবেষণার মাধ্যমে ব্যবসা মালিকদের এই উপদেশ দেয়া হয়েছে যে তারা যেন সম্ভাব্য উত্তরাধিকারীদের বয়স অপেক্ষাকৃত তরুণ থাকাকালীনই তাদের কাছে ব্যবসা হস্তান্তর করেন।

    এনএলআই গবেষণা ইন্সটিটিউটের ঊর্ধ্বতন গবেষক ইয়োসুকে নাকামুরা বলেছেন, তথ্যপ্রযুক্তি এবং অন্যান্য সাম্প্রতিক জ্ঞানসম্পন্ন তরুণ বাণিজ্যিক ব্যবস্থাপকের সংখ্যা বৃদ্ধির মাধ্যমে প্রচুর কর্মস্পৃহা পূর্ণ ছোট এবং মাঝারি আকৃতির ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বৃদ্ধি করা যাবে। এছাড়া, এটি অর্থনীতি এবং শিল্পের কার্যক্রম এবং ব্যাপ্তিও বৃদ্ধি করবে। নাকামুরা বলেছেন, জাপান সরকারের উচিত হবে নতুন চ্যালেঞ্জ গ্রহণের মধ্য দিয়ে ব্যবসায়িক উত্তরাধিকার হতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের প্রশিক্ষণ এবং অন্যান্য সহায়তা প্রচেষ্টা জোরদার করা। তিনি বলেন, অন্যদিকে কোম্পানিগুলোরও উচিত হবে নিজেদের কর্মকাণ্ডকে আরও আকর্ষণীয় করার মধ্য দিয়ে সম্ভাব্য উত্তরাধিকারীকে আকৃষ্ট করা।

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ১৫ জানুয়ারি ২০২০

    ০২ সেপ্টেম্বর ২০২০

    ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩১৪১৫১৬
    ১৭১৮১৯২০২১২২২৩
    ২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
    ৩১  
  • ফেসবুকে দশদিক