• শিরোনাম

    বিদেশে থাকা উইঘুরদের নির্যাতনে অর্থনৈতিক ক্ষমতা কাজে লাগাচ্ছে চীন

    | ২৬ জুন ২০২১ | ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ | পড়া হয়েছে 187 বার

    বিদেশে থাকা উইঘুরদের নির্যাতনে অর্থনৈতিক ক্ষমতা কাজে লাগাচ্ছে চীন

    এশিয়া ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে বাস করা উইঘুর মুসলমানদের দমন করতে চীন তার ব্যাপক অর্থনৈতিক ক্ষমতা ব্যবহার করছে। নতুন এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছেন অক্সাস সোসাইটি ফর সেন্ট্রাল এশিয়ান অ্যাফেয়ার্স এবং উইঘুর হিউম্যান রাইটস প্রজেক্ট।

    এতে বলা হয়েছে, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে শিনজিয়াংয়ে ১০ লাখের বেশি উইঘুর মুসলমানকে বন্দিশিবিরে আটক রেখেছে চীন। এবার বিদেশে বাস করা উইঘুরদের নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালাচ্ছে বেইজিং।



    বিদেশে আটক ও চীনে ফেরত পাঠানো এক হাজার ৫০০ এর বেশি ঘটনা পর্যালোচনা করেছেন গবেষকরা। এতে দেখা গেছে, ১৯৯৭ সাল থেকে বিদেশে বাস করা উইঘুরদের টার্গেট করছে চীন। আটক বা ফেরত পাঠানোর এই সংখ্যা হচ্ছে ‘বরফখন্ডের একটি অংশ মাত্র।’

    গবেষেকরা দেখেছেন, চীনের অবৈধ এই কাজের সহযোগী হয়েছে ২৮টি দেশ। এদের অধিকাংশ মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা ও দক্ষিণ এশিয়ার। চীনের অর্থের কাছে নতি স্বীকার করে উইঘুরদের ফেরত পাঠানোর হার নাটকীয়ভাবে ২০১৭ সাল থেকে বেড়েছে।

    অক্সাস সোসাইটির গবেষক ব্র্যাডলি জারডিন বলেছেন, ‘শিনজিয়াংয়ে যা ঘটছে আমাদের মনোযোগ তার দিকে ছিল, যেখানে রাষ্ট্রের পরিচালনায় উচ্চপ্রযুক্তির নজরদারি ব্যবস্থা তৈরি করা হয়। তবে এর পাশাপাশি যা ঘটছে, তা হলো এই দেশটি বিশ্বব্যাপী এগুলো রপ্তানি করছে।’

    প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গবেষকরা দেখতে পেয়েছেন উইঘুরদের আন্তঃদেশীয় নিপীড়নে চীন ১০টি দেশকে অহরহ ব্যবহার করেছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য চারটি দেশ হচ্ছে, পাকিস্তান, কিরগিজস্তান, কম্বোডিয়া ও মিয়ানমার।

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

  • ফেসবুকে দশদিক