• শিরোনাম

    মসজিদুল আকসায় ইসরাইলি পুলিশের তাণ্ডব

    | ২১ মে ২০২১ | ৯:২১ অপরাহ্ণ | পড়া হয়েছে 238 বার

    মসজিদুল আকসায় ইসরাইলি পুলিশের তাণ্ডব

    অধিকৃত ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড জেরুসালেমের পুরনো শহরে মসজিদুল আকসায় তাণ্ডব চালিয়েছে ইসরাইলি পুলিশ। গাজায় ইসরাইলি বাহিনী ও হামাসের মধ্যে শুরু হওয়া যুদ্ধবিরতির কয়েক ঘণ্টার মাথায় শুক্রবার এই হামলা চালানো হলো।

    প্রত্যক্ষদর্শীরা সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার সংবাদদাতাকে জানান, মসজিদে জুমার নামাজে সমবেত মুসল্লিরা গাজায় হামাস ও ইসরাইলের মধ্যে যুদ্ধবিরতি উদযাপন করার সময় এই হামলা চালায় পুলিশ। যুদ্ধবিরতি উদযাপনে মুসল্লিরা স্লোগান দেয়ার সময় ইসরাইলি পুলিশ মসজিদ প্রাঙ্গনে স্টান গ্রেনেড, স্মোক বোম্ব ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে।
    হামলায় অন্তত ২০ মুসল্লি আহত হয়েছেন বলে খবরে জানানো হয়।
    অধিকৃত জেরুসালেমের শেখ জাররাহ মহল্লা থেকে ফিলিস্তিনি বাসিন্দাদের উচ্ছেদ করে ইহুদি বসতি স্থাপনে গত ২৫ এপ্রিল ইসরাইলি আদালতের আদেশের জেরে ফিলিস্তিনিদের সাম্প্রতিক বিক্ষোভে পরপর কয়েক দফা মসজিদুল আকসায় হামলা চালায় ইসরাইলি বাহিনী। ৭ মে থেকে ১০ মে পর্যন্ত এই সকল হামলায় এক হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন বলে জাতিসঙ্ঘের মানবিক সাহায্য বিষয়ক দফতর ইউএনওসিএইএ।



    মসজিদুল আকসা চত্ত্বরে মুসল্লিদের ওপর ইসরাইলি নিরাপত্তা বাহিনীর হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ১০ মে স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টার মধ্যে মসজিদ থেকে সৈন্য সরিয়ে নিতে ইসরাইলকে আলটিমেটাম দেয় গাজা নিয়ন্ত্রণকারী ফিলিস্তিনি স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। আলটিমেটাম শেষ হওয়ার পর গাজা থেকে ইসরাইলের বিভিন্ন লক্ষ্যবস্তুতে হামাস রকেট হামলা শুরু করে।

    ইসরাইলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, গাজা থেকে ইসরাইলি ভূখণ্ডে শত শত রকেট নিক্ষেপ করেছে হামাস। ইসরাইলি আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আয়রন ডোমে বেশিরভাগ রকেট ধ্বংস করা হলেও বেশ কিছু রকেট ইসরাইলের বিভিন্ন স্থানে আঘাত হানে। রকেট হামলায় ইসরাইলের ১২ অধিবাসী নিহত ও সাত শ’ ৯৬ জনের বেশি আহত হয়েছেন।

    ইসরাইল ভূখণ্ডে হামাসের রকেট হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ১০ মে রাত থেকেই গাজায় বিমান হামলা শুরু করে ইসরাইল। ইসরাইলি বিমান হামলায় ৬৫ শিশু ও ৩৯ নারীসহ ২৩২ ফিলিস্তিনি নিহত হন। হামলায় আহত হয়েছেন আরো এক হাজার নয় শ’ গাজাবাসী।

    গাজায় ইসরাইলের টানা ১১ দিনের আগ্রাসনের পর বৃহস্পতিবার রাতে ইসরাইল ও হামাস যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হওয়ার ঘোষণা দেয়। মিসরীয় উদ্যোগে এই যুদ্ধবিরতির প্রচেষ্টায় ইসরাইলি মন্ত্রিসভার অনুমোদনের পর শুক্রবার সকাল থেকে তা কার্যকর হয়। ফিলিস্তিনিরা এই যুদ্ধবিরতিকে নিজেদের বিজয় হিসেবে গণ্য করছেন।

    সূত্র : আলজাজিরা ও আনাদোলু এজেন্সি

    Facebook Comments Box

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

  • ফেসবুকে দশদিক