• শিরোনাম

    মোদির আমলে ভারতীয় সৈন্যদের মধ্যে আত্মহত্যার রেকর্ড

    | ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ | পড়া হয়েছে 614 বার

    মোদির আমলে ভারতীয় সৈন্যদের মধ্যে আত্মহত্যার রেকর্ড

    ভারতে উগ্র জাতীয়তাবাদী সরকার তাদের সামরিক বাহিনীর বাহিনীর শৌর্য-বীর্যের গাথা শোনাতে সর্বদাই তৎপর। এমনকি পাকিস্তানে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানোর দাবিও করে থাকে। কিন্তু বর্তমান সময়ই ভারতীয় সামরিক বাহিনীর ভয়াবহ তথ্য সামনে এসেছে।

    খোদ ভারতীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রিপোর্টেই রেকর্ড সেনাবাহিনীর সদস্যদের আত্মহত্যার খবর প্রকাশ্যে আসছে। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যাচ্ছে, শুধু ২০১৮ সালেই আত্মহত্যা করেছেন ৯৬ জন সৈন্য। এখানেই শেষ নয়। জানা যাচ্ছে, ২০১৬ সালে ৯০ জন, ২০১৭ সালে ১২১ জন ও ২০১৮ সালে ৯৬ জন সিএপিএফ জওয়ান আত্মহত্যা করেছেন।

    বুধবারের রিপোর্টে পরিষ্কার, শুধু সিএপিএফ নয়, রেকর্ড আত্মহত্যার ঘটনা ঘটেছে স্থল সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, বিমানবাহিনীর অন্দরেও। ২০১৮ সালে ৮০ জন সেনা জওয়ান আত্মহত্যা করেছেন। ২০১৬ সালে সেই সংখ্যা ছিল ১০৪ জন ও ২০১৭ সালে তা ছিল ৭৫ জন। অন্য দিকে, ২০১৮ সালে নৌসেনার ৮ জন ও বিমান সেনার ১৬ জন আত্মহত্যা করেছেন। অর্থাৎ প্রতি বছর গড়ে ৮৭ জন করে ভারতীয় সেনা জওয়ান মারা যাচ্ছেন।

    কিন্তু কেন এই আত্মহত্যার ঢল? অতীতে তেজবাহাদুর যাদব নামে এক সেনা জওয়ান খারাপ খাবারের প্রতিবাদ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হয়েছিলেন। পরিবার থেকে দূরে থাকা, স্বাস্থ্যকর আলাপচারিতার অভাব, কঠোর অনুশাসন ও দৈহিক শ্রমই সেনাকর্মীদের আত্মহত্যার দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

    ভারতের রাজধানী দিল্লির একটি আবাসিক হোটেলে আগুন লেগে শিশুসহ অন্তত ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ভোর ৪টায় নগরীর কারোল বাগের হোটেল অর্পিত প্যালেসে আগুন লাগে। এ ঘটনায় আরো তিনজন আহত হয়েছেন। মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে একজন নারী ও একটি শিশু রয়েছে এবং তারা হোটেলের একটি জানালা দিয়ে লাফিয়ে পড়ার চেষ্টাকালে মারা যান বলে জানা গেছে।

    অগ্নিকাণ্ডের সময় হোটেলটিতে থাকা বেশির ভাগ লোক ঘুমিয়ে ছিলেন। আগুন লাগার খবর পাওয়ার সাথে সাথেই ২৪টিরও বেশি দমকলবাহিনীর গাড়ি ঘটনাস্থলের দিকে ছুটে যায়। প্রত্যক্ষদর্শীদের মোবাইল ফোনে ধারণ করা ভিডিওতে দেখা গেছে, হোটেলের বিশাল সাদা ভবনটির ছাদের দিকের অংশটিতে আগুন জ্বলছে। ভিডিওতে সেখান থেকে এক ব্যক্তিতে ঝুলতে ও পরে লাফ দিতে দেখা যায়।

    সকাল ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়। আগুন লাগার কারণ পরিষ্কার হয়নি। হোটেলটি থেকে ৩৫ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। আহতদের স্থানীয় রাম মনোহর লোহিয়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দমবন্ধ হয়ে বেশির ভাগ মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। দিল্লির কেন্দ্রীয় এলাকা কারোল বাগ পর্যটকদের একটি পছন্দের এলাকা। এলাকাটিতে অনেক হোটেল ও মার্কেট আছে।

    মন্তব্য করুন

    মন্তব্য

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০১১১২১৩
    ১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
    ২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
    ২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে দশদিক