• শিরোনাম

    লাদাখে ১০০ তাঁবু চীনের, ভারত-চীন সীমান্তে উত্তেজনা

    | ২৭ মে ২০২০ | ৩:২২ অপরাহ্ণ | পড়া হয়েছে 125 বার

    লাদাখে ১০০ তাঁবু চীনের, ভারত-চীন সীমান্তে উত্তেজনা

    কয়েক দিন ধরেই ভারত ও চীন সীমান্তে উত্তেজনার খবর পাওয়া যাচ্ছে। উত্তেজনার মধ্যে সেখানে চীন শিবির তৈরি ও অস্ত্র মোতায়েন করেছে বলে ভারত দাবি করছে।

    পূর্ব লাদাখে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর প্যাংগং ও গালোয়ান উপত্যকায় সেনাসদস্য বাড়িয়েছে দুই দেশ। চীন বাংকার তৈরি করেছে। অস্থায়ী পরিকাঠামোও তৈরি করেছে। সেখানে তারা দুই থেকে আড়াই হাজার সেনা বাড়িয়েছে। ভারতও একইভাবে সেনার সংখ্যা বাড়িয়েছে। এ নিয়ে ভারত ও চীন সীমান্তে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ২০১৭ সালে দোকলামের পরও এ ধরনের পরিস্থিতি সীমান্তে তৈরি হয়নি। তবে এবার পূর্ব লাদাখের পরিস্থিতি ভিন্ন।



    প্রথমে প্যাংগং তোসো লেক ও পরে গালোয়ান উপত্যকায় চীন সেনা পাঠায়। গত দুই সপ্তাহে ওই এলাকায় চীন অন্তত ১০০টা শিবির (তাঁবু) তৈরি করেছে। এরই মধ্যে গত শুক্রবার ওই এলাকা ঘুরেও এসেছেন ভারতের সেনাপ্রধান এম এম নারাভানে।

    ভারতের গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সম্প্রতি ভারতীয় সেনাসদস্যদের আটকও করেছিল চীন। পরে তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়, অস্ত্রশস্ত্রও ফেরত দেওয়া হয়েছে। কিছুক্ষণের জন্য আটক করা হয়েছিল তাঁদের। লাদাখের প্যাংগং লেকের পূর্ব তীরে একের পর এক চীনা নৌকা জমায়েত হচ্ছে। বাড়ানো হয়েছে নজরদারি।

    প্যাংগং লেকের পূর্ব দিকের এলাকা চীনের অধীনে। আর পশ্চিম দিকটা ভারতের। সেখানেই রাস্তা তৈরি করেছে ভারত। তা নিয়েই আপত্তি চীনের।

    ভারতের অবসরপ্রাপ্ত নর্দান সেনা কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল ডি এস হুডা বলেছেন, বিষয়টা গুরুতর। এটা কোনো সাধারণ সীমা লঙ্ঘন নয়। তাঁর মতে গালোওয়ানের মতো এলাকায় সীমান্ত অতিক্রম উদ্বেগের বিষয়। তাঁর দাবি, ওই সীমান্তরেখায় কোনো সমস্যা নেই।

    কৌশলগত বিষয়ের বিশেষজ্ঞ অশোক কে কান্ঠা বলেন, পরিস্থিতি যথেষ্ট অস্বস্তির। তাঁর দাবি, বেশ কিছু জায়গায় চীনের সেনাসদস্যরা সীমান্তরেখা লঙ্ঘন করেছেন, যা উদ্বেগ বাড়াচ্ছে। এটা রুটিনমাফিক সীমান্ত লঙ্ঘন নয় বলে দাবি তাঁর।

    ৫ মে চীন ও ভারতের সীমান্তে সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষের পর থেকেই পূর্ব লাদাখের পরিস্থিতি ক্রমেই খারাপ হয়েছে। ওই দিন ভারতীয় ও চীনা সেনা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছিলেন রড, লাঠি নিয়ে। পাথর ছোড়াও হয়েছিল। আহত হয়েছিলেন দুই পক্ষের সেনারাই। ২০১৭ সালে দোকলামে দুই দেশের সেনাদের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হয়েছিল। তথ্যসূত্র: ডেকান ক্রনিকল ও এনডিটিভি

    Facebook Comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
  • ফেসবুকে দশদিক