• শিরোনাম

    সোহরাওয়ার্দীর ২০০ রোগী ঢামেকে

    | ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৯:৩৯ পূর্বাহ্ণ | পড়া হয়েছে 169 বার

    সোহরাওয়ার্দীর ২০০ রোগী ঢামেকে

    সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে আগুনের ঘটনায় রাত পৌনে ১২টা পর্যন্ত প্রায় ২০০ মতো রোগী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসেছে।

    জরুরি বিভাগের আবাসিক সার্জন ডা. মো. আলাউদ্দিন জানান, এ পর্যন্ত প্রায় ২০০ মতো সংখ্যার রোগী ঢামেকে এসেছে। এখানে চিকিৎসক থেকে শুরু করে নার্স, দায়িত্বরত আনসার সবাইকে আগে থেকেই প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন ওয়ার্ডে রোগের ধরণ অনুযায়ী সবাইকে ভর্তি করা হয়েছে।

    তিনি বলেন, প্রত্যেক রোগীকে আমরা ওয়ার্ডে স্থানান্তর করতে পেরেছি। এতে কোনো সমস্যা হয়নি। যদিও রোগী আসায় ভিড়ের কারণে একটু সমস্যা হচ্ছিল, তারপরও আমাদের যথেষ্ট চিকিৎসকসহ নার্স থাকায় তা করতে খুব একটা ঝামেলা হয়নি।

    ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন জানান, ২০০ থেকে বেশি রোগী আমাদের এখানে এসেছে। এর মধ্যে দুইজন আইসিওতে। আমাদের চিকিৎসক থেকে শুরু করে দায়িত্বরত নার্সরা সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

    সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে আগুন লাগায় সেখানকার অনেক রোগী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। রোগীরা হলেন মেহেদী হাসান (২৩),জাহান আরা বেগম (৫৫),সুফিয়া বেগম (৩৫),আমেনা বেগম (৬৫),আবু আহম্মেদ (৬০),শফিকুল (৩৫),ইউসুফ (৮০),রিফাত (২০),ছায়েতুন নেসা (৪৫),আয়নাল হোসেন, রেনু আক্তার, আনোয়ান, শফিক, সুরাইয়া, ইউনুছ (৮০),সেলিম (৫০),ফাতেমা (৪৫),তামিম (৮), হাফিজ (৫০),ফারুক (৩৫),আশরাফুল হক, শামসুল হকম, শরিফুল, রহিম গাজী, কামরুল, রেজাউল, ইদ্রিস, আফসানা (২৯), জেসমিনসহ এ পর্যন্ত্ প্রায় ২০০ রোগীকে স্থানান্তর করা হয়েছে। এছাড়া আরো রোগী আসছে।

    এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে হাসপাতালে নতুন ভবনের তৃতীয় তলার স্টোর রুম থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট তিন ঘণ্টা প্রচেষ্টা শেষে রাত সাড়ে ৮টার দিতে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

    ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আলী আহাম্মেদ খান ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট তিন ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। ভেতরে ধোঁয়া রয়েছে। আমরা ভেতরে গিয়ে কাজ করছি। ভেতরে ফায়ার সার্ভিস, হাসপাতালের লোক ও পুলিশ রয়েছে। আল্লার রহমতে এখন সব রোগীদের বের করতে সক্ষম হয়েছি।’

    তিনি বলেন, ‘প্রতিটা রুমে গিয়ে সার্চ করছি। আগুনের সূত্রপাত স্টোর রুম থেকে হয়েছিল বলে শুনেছি। গ্রাউন্ড ফ্লোর থেকে উপরের দিকে আগুনটি কয়েকটি রুমে ছড়িয়ে পড়েছিল। গেইট ভেঙে ভেঙে রুমগুলোতে গিয়ে কাজ করছি। ধারণা করা হচ্ছে, আগুনে ১৫ টি রুম পুড়েছে।’

    জানা গেছে, হাসপাতালে ১২ শতাধিক রোগী ভর্তি ছিলেন। আগুন লাগার খবরে সবাই এগিয়ে এসে সহায়তা করে। অনেক অ্যাম্বুলেন্স এসে বিনা পয়সায় রোগীদের হস্তান্তর করে।

    এমআর/এআরই

    মন্তব্য করুন

    মন্তব্য

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

    আর্কাইভ

    শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
    ১০১১১২১৩১৪
    ১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
    ২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
    ২৯৩০  
  • ফেসবুকে দশদিক